বিপিসি’র বকেয়া ২১৩৩ কোটি টাকা মওকুফ চায় বিমান

4

সবুজ সিলেট ডেস্ক::
বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) ২ হাজার ১৩৩ কোটি পাওনা টাকা মওকুফ চায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। জেট ফুয়েল ব্যবহার বাবদ বকেয়া পরিশোধ না করার জন্য সরকারের কাছে আবেদনও জানিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত এই এয়ারলাইন্স সংস্থাটি। তবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেছেন, আইন অনুযায়ী এই অর্থ মওকুফ করা সম্ভব নয়।

জ্বালানি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, এ সংক্রান্ত একটি চিঠি অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। চিঠিতে বিমানের লোকসান দেখিয়ে বকেয়া থাকা ২ হাজার ১৩৩ কোটি টাকা মওকুফের অনুরোধ করা হয়।
গত কয়েক বছর ধরে বিপিসি এই পাওনা আদায়ের চেষ্টা করে আসছে। তবে বিমানের সঙ্গে আলোচনায় কোনো ফল আসেনি। পরে বিষয়টির বিস্তারিত জানিয়ে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি বিভাগে চিঠি পাঠায় বিপিসি। ওই চিঠি পাওয়ার পর বিষয়টি বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়কে অবহিত করে জ্বালানি বিভাগ। তাতেও টাকা আদায় না হলে বিষয়টি সুরাহা করতে গত ২২ অক্টোবর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে উচ্চ পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

সূত্র জানায়, জ্বালানি বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠক থেকেও কোনো সিদ্ধান্ত বা সমাধান আসেনি। ফলে সেদিন একটি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। জ্বালানি বিভাগ, বিপিসি ও বিমান বাংলাদেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত ওই কমিটির প্রতিবেদন এলে আবার বৈঠক হবে। পুরো বিষয়টি এখন অনেকটাই নির্ভর করছে ওই কমিটির প্রতিবেদনের ওপর।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জ্বালানি বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আনিছুর রহমান সারাবাংলাকে বলেন, ১০ বছর ধরে বিমান বাংলাদেশ বিপিসিকে ফুয়েল ব্যবহারের কোনো টাকা দেয় না। এখন তারা অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে ‘রাইট অফ’ করার জন্য আবেদন জানিয়েছে। প্রচলিত বিধি অনুযায়ী এর কোনো সুযোগ নেই। তবে এই অর্থ মওকুফের বদলে সরকার নিজস্ব তহবিল থেকে বিমানকে ভর্তুকি বা ঋণ আকারে দিতে পারে।

জানা গেছে, প্রতি মাসে প্রায় ৫০ কোটি টাকা মূল্যের জেট ফুয়েল বিমান বাংলাদেশকে সরবরাহ করে আসছে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান পদ্মা অয়েল। তবে লোকসান দেখিয়ে গত আট বছর ধরে এই ফুয়েলের কোনো টাকাই পরিশোধ করেনি বিমান বাংলাদেশ।

বিপিসি সূত্র বলছে, ২০১১ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত আট বছরে বিপিসি থেকে নেওয়া ফুয়েলের জন্য একটি টাকাও পরিশোধ করেনি বিমান। এই আট বছরে বিমানের কাছে বিপিসির জেট ফুয়েল বাবদ বকেয়া ২ হাজার ১৩৩ কোটি টাকা। প্রতিষ্ঠানটি বকেয়া না মেটানোয় ঋণের টাকায় ফুয়েল সরবরাহকারী পদ্মা অয়েলও লোকসানে থেকে ব্যাংক ঋণের সুদ গুনছে।

সবুজ সিলেট/ ৩১ অক্টোবর/শামছুন নাহার রিমু