সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে দুর্বৃত্তদের হামলা ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে এক নার্স আহত

18

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা সদর হাসপাতালে এক নার্স দুর্বৃত্তের হামলায় আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।
শুক্রবার রাত ১১টার দিকে দুই র্দুবৃত্ত হাসপাতালের ৬তলার মহিলা মেডিসিন ও সার্জারী ওয়ার্ডে এসে একজন আয়াকে খুজতে থাকে। এসময় ওই ওয়ার্ডে কর্তব্যরত সিনিয়র স্টাফ নার্স শ্রাবণী কুচ জানান ওই আয়া এখানে নেই। একপর্যায়ে দুর্বৃত্তরা তার সঙ্গে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে গলায় ধারালো অস্ত্র ধরে।

পরে তিনি আত্মরক্ষার্থে চিৎকার দিলে তার বাম হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত করে পালিয়ে যায়। এঘটনার পরপর হাসপাতালের কর্তব্যরত নার্স সদস্যরা নিচে এসে জমায়েত হয়ে হাসপাতালের ডাক্তার কোয়াটারে গিয়ে বিষয়টি আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ রফিকুল ইসলামকে মৌখিক ভাবে জানায়। তিনি আগামীকাল শনিবার সকালে থানায় গিয়ে লিখিত ভাবে জানানোর পরামর্শ দেন। পরে সদর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নার্সদের সঙ্গে কথা বলে নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে আহত সিনিয়র স্টাফ নার্স শ্রাবণী কুচ বলেন, অজ্ঞাত পরিচয় দুই যুবক পারভীন নামের এক মহিলা কোথায় আছে জানতে চাইলে তিনি বলেন পারভীন এখানে নেই। কখন আসবে তা তিনি জানেন না। এককথা বলার পরপর যুবকরা তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে এক পর্যায়ে গলায় ধারালো ছুরি ধরে। পরে তিনি আত্ম রক্ষার্থে বাম হাত দিয়ে গলা থেকে ছুরি সরাতে গেলে দুবৃত্তরা তার বাম হাতের ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে।

এব্যাপারে সিনিয়র স্টাফ নার্স ও ওয়ার্ড সুপার ভাইজার আমেনা আক্তার বলেন, বিষয়টি আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।
এব্যাপারে সুনামগঞ্জসদর মডেল থানার এস আই আব্দুল মালেক খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে প্রমানিতহলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সবুজ সিলেট/ এস মায়াজ আহমদ তালহা