হুঁশিয়ারির পরও ভারতের কৃষক আন্দোলনের পাশে কানাডার প্রধানমন্ত্রী

7

‌আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::
ভারতের কৃষক আন্দোলন নিয়ে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর মন্তব্যের পরই কানাডার হাইকমিশনারকে তলব করেছিল নয়া দিল্লি। তবে নিজের অবস্থানে অনড় রয়েছেন ট্রুডো। নয়া দিল্লির অবস্থান জানার পরও শুক্রবার ফের তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন, ভারতের কৃষক আন্দোলনের পাশেই আছেন তিনি।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী বলেন, কানাডা পৃথিবীজুড়েই সব শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের পাশে আছে এবং থাকবে। আমরা খুশি যে আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করতে সরকার উদ্যোগ নিচ্ছে।

মঙ্গলবার গুরু নানকের জন্মবার্ষিকী সংক্রান্ত এক অনলাইন আলোচনায় তিনি শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অধিকার রক্ষায় সবসময় পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন। প্রথম কোনও বিশ্বনেতা হিসেবে ভারতের কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে মন্তব্য করেন তিনি। জাস্টিন ট্রুডো বলেন, ভারতে কৃষক আন্দোলন পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। আমরা সবাই পরিবার ও বন্ধুদের নিয়ে খুবই উদ্বেগে আছি। আমি জানি এই বাস্তবতা আপনাদের অনেকের। আপনাদের স্মরণ করিয়ে দেই, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অধিকার রক্ষায় কানাডা আপনাদের পাশে থাকবে।

এমন মন্তব্যের পর নয়া দিল্লিতে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনারকে তলব করে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি জারি করে বলা হয়, এই মন্তব্য ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ। এমন চলতে থাকলে দু’দেশের সম্পর্কে প্রভাব পড়তে বাধ্য।

শুক্রবার তাকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে নিয়ে কানাডার প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যের আনুষ্ঠানিক নিন্দা জানানো হয়েছে। এছাড়া এ ধরনের কর্মকাণ্ড দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত করবে বলেও সতর্ক করা হয় তাকে।

কানাডায় খলিস্তানি কট্টরপন্থীরা ভারতীয় দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ করায় নিরাপত্তার অভাব তৈরি হয়েছে বলেও অভিযোগ করা হয় ভারতের পক্ষ থেকে।

উল্লেখ্য, কানাডার জনগোষ্ঠীর বড় একটি অংশ ভারতীয় বংশোদ্ভূত এবং শিখ ধর্মের অনুসারী। দেশটির মূলধারার রাজনীতিতেও তাদের সক্রিয় অংশগ্রহণ রয়েছে।

সবুজ সিলেট/ এস মায়াজ আহমদ তালহা