দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বিদ্যালয়ের দপ্তরীকে নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল

10

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শিমুলবাক ইউনিয়নের মুক্তাখাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরীকে গাছে বেঁধে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়ে।

এঘটনায় সোমবার (৭ ডিসেম্বর) নির্যাতনের শিকার ওই দপ্তরী মোঃ তোফায়েল আহমদ (৩২) বাদী হয়ে একই গ্রামের মনোয়ার আলীর পুত্র শাহনুর মিয়ার (৩৫) বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় নির্যাতনের অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, মুক্তাখাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী মোঃ তোফায়েল আহমদ ২০১৪ সালে নিয়োগ পরীক্ষার মাধ্যমে দপ্তরী পদে নিয়োগ পান। এসময় উল্লেখিত বিবাদী শাহনুর মিয়াও তার সাথে নিয়োগ পরীক্ষা দিলে তার চাকরি হয়নি। চাকরি না হওয়ায় বিবাদীর মনে ক্ষোভ জন্ম নেয়। বিবাদী শাহনুর মিয়া সবসময়ই সুযোগ খুজতে থাকেন কিভাবে তাকে শায়েস্তা করা যায়৷ এরই প্রেক্ষিতে গতকাল সকাল ১১ টায় বিদ্যালয়ের কম্পাউন্ডে রংয়ের কাজ তদারকি করার সময় বিবাদী শাহনুর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বিদ্যালয়ে ডুকে সরকারী কাজ করতে বাধা দেয়। এবং কোন কিছু বলার আগেই বিবাদী তার উপর হামলা চালিয়ে টেনেহিঁচড়ে বিদ্যালয়ের বাহিরে নিয়ে বিদ্যালয়ের সামনে থাকা গাছের সাথে প্লাস্টিকের রশি দিয়ে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় চাবুক দিয়ে নির্যাতন করতে থাকেন। এতে তোফায়েলের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম হয়।

এছাড়া ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, দপ্তরী তোফায়েলকে গাছের সাথে বেঁধে বেধকর মারধর ও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করছেন শাহনুর। এসময় তোফায়েলের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা ছুটে আসেন।

পরবর্তীতে তাকে উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের প্রেরণ করেন। ফলে উক্ত ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য থানায় অভিযোগ দায়ের করেন দপ্তরী তোফায়েল।

তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জয়নাল আবেদীন এ প্রতিবেদককে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, তদন্ত চলমান রয়েছে।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মুক্তাদির হোসেন এ প্রতিবেদককে বলেন অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সবুজ সিলেট/ এস মায়াজ আহমদ তালহা