নবীগঞ্জে দুর্ঘটনায় নিহত ৮ জনের দাফন সম্পন্ন

8

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ::
ঢাকা সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার দিনারপুরের গজনাইপুর ইউনিয়নের শাহ মুশকিল আহসান (র.) মাজারের সামনে বাস-সিএনজি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে মা-মেয়েসহ নিহত ৮জনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। শোকে স্তব্ধ হয়ে পড়েছে পুরো দিনারপুর পরগণা।
মঙ্গলবার সকালে- দুপুরে ও গত সোমবার রাতে পৃথক স্থানে নিহত ৮ জনের জানাযার নামাজ শেষে নিহতদের দাফন সম্পন্ন হয়।
মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় গজনাপুর ইউনিয়নের সাতাইহাল ৩ মৌজা জামে মসজিদের সামনে সড়ক দুর্ঘটনায় সাতাইহাল গ্রামের নুরুল ইসলামের পুত্র অন্তর মিয়া (২২), সাতাইহাল গাজীর মোকাম এলাকার মৃত ছুরুত আলীর পুত্র লিটন মিয়া(১৭)র জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয় । পরে তাদের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। সকাল ১১টায় নিহত লিজা আক্তার(১৯) এর জানাযার নামাজ নিজ বাড়ি সাতাইহাল (কাজীপাড়া) গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। জানা যার নামাজ শেষে তাকে পারিবারিক কবর স্থানে দাফন করা হয়। বাদ যোহর সাতাইহাল রয়েল বেঙ্গল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে নিহত তাজুল ইসলাম সোহেল (২৫) জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পরে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়।

মঙ্গলবার ১১টায়-দেবপাড়া ইউনিয়নের লতিবপুর ফুটবল মাঠে লতিবপুর গ্রামের আফতাব আলীর পুত্র নিহত সিএনজি চালক কিতাব আলী (৩০) জানা যার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাযার নামাজে স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ গণমাণ্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত সোমবার রাত ১১:১০মিনিটে নিজ বাড়ি গজনাইপুর ইউনিয়নের মুড়াউরা গ্রামে ওই গ্রামে আবু তাহের স্ত্রী সামিরুন বেগম(২৮), মেয়ে মারিয়া আক্তার(২), আবু তাহেরের ভাই আনু মিয়ার স্ত্রী হালিমা বেগম(২৫) এর জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাযার নামাজে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ গণমাণ্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। পরে তাদের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এমন মর্মান্তিক ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে পুরো দিনারপুর পরগনা জুড়ে। দিনারপুরের সড়কে ঝড়ে গেছে দিনারপুর পরগণার তরতাজা ৮টি প্রাণ।

আব্দুল মুহিত নামে একজন জানান- হঠাৎ কী যেন হয়ে গেছে, চোখের সামনে অনেক স্বপ্ন আশা আক্ঙক্ষা চুরমার হয়ে গেছে।

গজনাইপুর ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক জমশেদ আলী জানান- বাস-সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় আমাদের এলাকার ৮জনের তাজা প্রাণ চলে গেছে , এমন দুর্ঘটনায় দিনারপুর পরগনা জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

গজনাইপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) সৈয়দ মাহবুবুর রহমান নুরু বলেন- সত্যিই অত্যন্ত মর্মান্তিক ঘটনা, দিনারপুর বাসীর অনেক বড় ক্ষতি হয়ে গেল, আমরা খুবই মর্মাহত।

উল্লেখ্য- গত সোমবার নিহতরা সকল সিএনজি (হবিগঞ্জ-থ ১১-৬৭৭৭) ও অজ্ঞাত সিএনজিসহ দুটি সিএনজি যোগে পানিউমদা যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে মহাসড়কের গজনাইপুর ইউনিয়নের ফুলতলী বাজারস্থ শাহ মুশকিল আহসান (র.) মাজারের নিকটে পৌছামাত্রই বিপরীত দিক থেকে আসা কুমিল্লা থেকে সিলেটগামী বিআরটিসি পরিবহনের যাত্রীবাহী বাস ঢাকা মেট্রো-(ব-১১-৫৫১৮) পরিবহনের বাসের সাথে সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ বাধে। এতে দুটি সিএনজি দুমড়ে-মুচড়ে। এসময় বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে একটি সিএনজিসহ খাদে পড়ে যায়। এ ঘটনায় ঘটনাস্থলেই ৮ জনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় বাসের যাত্রীসহ আহত হয়েছেন ১০জন। আহতদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। রাতেই ময়না তদন্ত ছাড়া নিহতদের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে প্রশাসন।

সবুজ সিলেট/ এস মায়াজ আহমদ তালহা

  •