ট্রাফিক আইনের মামলা অফিসে নয়, এখন সড়কেই হবে

17

স্টাফ রিপোর্টার

সিলেটের সড়কে ট্রাফিক আইনের মামলা ও জরিমানার অর্থ প্রদানে স্বচ্ছতা এবং জনসাধারণের ভোগান্তি কমাতে হাইওয়ে পুলিশের সাথে এক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক।

বুধবার (৯ ডিসেম্বর) বিকেলে সিলেট জেলা হাইওয়ে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এই চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এই চুক্তির মধ্য দিয়ে বিভিন্ন মোবাইল সিমের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ও ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি)’র পজ মেশিনের মাধ্যমে সহজে জরিমানার অর্থ প্রদান করতে পারবেন আইন অমান্যকারীরা।

তাই এখন থেকে মোটরযান আইনে আরোপিত জরিমানা প্রদানে এখন থেকে কাউকে ব্যাংক কিংবা ট্রাফিক অফিসে যেতে হবে না। ব্যাংকের পজ মেশিন অথবা সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে জরিমানার অর্থ প্রদান করা যাবে।

নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন, সিলেট হাইওয়ে পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ ও ইউসিবি ব্যাংকের হেড অব বিজনেস সাদ মোহাম্মদ ফয়জুল করিম।

চুক্তি স্বাক্ষর শেষে সিলেট হাইওয়ে পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ বলেন, পজ মেশিন পদ্ধতির মাধ্যমে যানবাহনের কেস স্লিপ প্রদান করায় মানুষের ভোগান্তি কমে আসবে। এছাড়া জরিমানার টাকা জমা দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টির ফলে পুলিশের সাথে নগদ টাকার লেনদেন হবে না। এতে দুর্নীতির সুযোগ কমবে। যে স্থানে জরিমানা করা হবে সেখান থেকেই পজ মেশিনের মাধ্যমে তাৎক্ষণিক রশিদ গ্রহণ করে জরিমানা প্রদান করা যাবে।

তিনি আরও বলেন, এই পজ মেশিন ব্যবহারের পুলিশের স্বয়ং সম্পূর্ণ ট্রাফিক ডাটাবেজ তৈরি হবে। এছাড়া হাইওয়ে পুলিশ ইউনিটে কতগুলো মামলা হয়েছে তার পরিসংখ্যান জানা যাবে। একই সাথে তথ্য সার্ভারের সংরক্ষিত থাকায় তা কর্মকর্তাদের মনিটরিং করাও সহজ হবে।

ইউসিবি ব্যাংকের হেড অব বিজনেস সাদ মোহাম্মদ ফয়জুল করিম জানান, পজ মেশিনের মাধ্যমে মহাসড়কে বিভিন্ন যানবাহনের মামলাগুলো ডিজিটাল পদ্ধতিতে এখন থেকে করা হবে। যা সাথে সাথেই পজ মেশিনের ম্যাধমে জরিমানার স্লিপ প্রদান করা হবে। আর জরিমানার টাকা জমা করতে বার বার অফিসে অফিসে আর ধরনা দিতে হবেনা চলার পথেই ইউসিবি ব্যাংকের যে কোন রিটেইলার পয়েন্টেই চালকরা টাকা জমা করে মামলা নিষ্পত্তি বা যানবাহনের কাগজ ফেরত পাবেন।

প্রসঙ্গত, ঢাকা চট্টগ্রামের পর এবার সিলেটে এই কার্যক্রম শুরু করার কথা জানান উদ্যোক্তারা ।

সবুজ সিলেট/০৯ ডিসেম্বর/সেলিম হাসান