মাধবপুরে শিশু হত্যা : দুইজনের যাবজ্জীবন

5

মাধবপুর প্রতিনিধি
হবিগঞ্জের মাধবপুরের শিবজয়নগরে মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে শিশুকে অপহরণের পর হত্যার দায়ে দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ১ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিনমাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে তাদের।

আজ বুধবার (৯ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টায় হবিগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল (৩) এর বিচারক মোহাম্মদ হালিম উল্ল্যাহ চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- উপজেলার শিবজয়নগর গ্রামের বাসিন্দা জালাল মিয়া (৩২) ও একই গ্রামের রাসেল মিয়া (৩৫)।

হবিগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি এডভোকেট মো. আবুল হাসেম মোল্লা মাসুম জানান, উপজেলার শিবজয়নগর গ্রামের জালাল মিয়াসহ তাদের লোকজনের বাড়ির জায়গা-সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ ছিল পার্শ্ববর্তী সাবাশ আলীর সঙ্গে। এরই জের ধরে জালাল মিয়াসহ তাদের লোকজন ২০১৮ সালের ৬ জানুয়ারি সাবাশ আলীর ৭ বছরের শিশুসন্তান শাহপরানকে অপহরণ করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে তাকে হত্যা করে মরদেহ ফেলে রাখে গ্রামের একটি ডোবায়।

এ ঘটনায় ২০১৮ সালের ১১ জানুয়ারি নিহত শাহপরাণের পিতা সাবাশ আলী বাদী হয়ে জালাল মিয়া, রাসেল মিয়া ও বাহার মিয়াকে আসামি করে মাধবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে জালাল মিয়া ও রাসেল মিয়াকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। কোনো অভিযোগ না থাকায় বাহার মিয়াকে চার্জশিট থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

আদালত মামলার ২৪ জন সাক্ষীর স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এ রায় প্রদান করেন। রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন এডভোকেট মোস্তফা মিয়া ও আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন মো. জসীম উদ্দিন।

আসামিপক্ষের আইনজীবী মো. জসীম উদ্দিন বলেন, ‘আসামিদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি রাষ্ট্রপক্ষ। তবুও দুইজন আসামিকে যাবজ্জীবন দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।’

সবুজ সিলেট/০৯ ডিসেম্বর/সেলিম হাসান