শিক্ষক নিয়োগে আপস করিনি : শাবি উপাচার্য

7

স্টাফ রিপোর্টার

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) তত্ত্বাবধানে চার দিনব্যাপি জুনিয়র শিক্ষকদের নিয়ে ‘সায়েন্টিফিক রিপোর্ট রাইটিং’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (৯ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে দশটায় আইকিউএসির সেমিনার কক্ষে শেষ দিনের কর্মশালা শুরু হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, ‘ভালো বীজ থেকে যেমন ভালো ফল হয়, তেমনি ভালো শিক্ষক থেকে ভালো ছাত্র হয়। তাই শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে আমরা কোনো আপস করিনি। আমাদের শিক্ষকদের আমরা এমনভাবে তৈরি করতে চাই যেন তাদের নিজস্ব স্বকীয়তা থাকে।’

তিনি বলেন, ‘অনেক ভালো কাজ হওয়ার পরেও র‌্যাংকিংয়ে আমরা অনেক পিছিয়ে যাচ্ছি। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট সবসময় আপডেট রাখতে হবে। কারণ ওয়েবসাইট হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিচ্ছবি।’

শিক্ষকদের উদ্দেশে শাবি উপাচার্য বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে বড় কাজ হচ্ছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দক্ষতা আরও বেশি বৃদ্ধি করা। সেজন্য ট্রেনিংয়ের কোনো বিকল্প নেই। তাই দক্ষতা বাড়াতে যে বিষয়ে ট্রেনিংয়ের প্রয়োজন সে বিষয়েই ট্রেনিং করানো হবে।’

আইকিউএসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আশরাফুল আলমের সভাপতিত্বে কর্মশালায় অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম।

কর্মশালায় রিসোর্স পারসন ছিলেন- ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মো. মুহসিন আজিজ খান, অর্থনীতি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল মুনিম জোয়ার্দার, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান খান ও বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ড. শামিম আহমেদ।

সবুজ সিলেট/০৯ ডিসেম্বর/সেলিম হাসান