জকিগঞ্জে প্রশাসনের নাম ভাঙ্গিয়ে সুরমা নদী থেকে বালুউত্তোলন

11


জকিগঞ্জ প্রতিনিধি
সিলেটের জকিগঞ্জের বারহাল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে সুরমা নদী থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে বুধবার লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, সুরমা নদীর অব্যাহত ভাঙ্গনে সুরমা নদীর পার্শ্ববর্তী চক ও উত্তর খিলোগ্রামের বেশীরভাগ বাড়ীঘর ও ফসলীজমি ইতিমধ্যে নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে।

ৎভাঙ্গনের মূখে রয়েছে শাহগলী বাজারসহ আশপাশের জনবসতি ও স্থাপনা। সুরমা নদীর ওপারে কানাইঘাট উপজেলার কায়স্থগ্রাম রক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ড কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে বøক স্থাপন করে ভাঙ্গন প্রতিরোধের চেষ্টা করছে। গুচ্ছ গ্রামের জন্য প্রশাসনকে অবহিত করার নাম করে বারহাল ইউপি চেয়ারম্যান নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার বালু উত্তোলন করে বিক্রির পায়তারা করছেন। আগামী বর্ষা মৌসুমে এর বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। স্থানীয় কৃষকদের অসত্য তথ্য দিয়ে একদিনের নোটিশে তাদের ফসলী জমির কাঁচাপাকা ধান কাটতে বাধ্য করেছেন বলেও তারা অভিযোগ করেন। অভিযোগে আরোও উল্লেখ করা হয় অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ না হলে নদী তীরবর্তী বাড়ীঘর, ফসলি জমি ভাঙ্গন ও পরিবেশ বিপর্যয় দেখা দেয়ার আশংকা রয়েছে। অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধের ব্যাপারে সরকারের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের আসু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী বলেন, সরকারি কাজের স্বার্থে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুমী আক্তার বরেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নিবো।

সবুজ সিলেট/১১ ডিসেম্বর / সেলিম হাসান