কৃষক কল্যাণেই কৃষি আইন: মোদি

3

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: কৃষকরা দিল্লি অবরোধ করে বসে আছেন, কিন্তু তাতে নড়াচড়া নেই ভারতীয় প্রশাসনের। বরং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শনিবার ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি’র বৈঠকে বলেছেন, কৃষকদের সাহায্য করার জন্যই কৃষি সংস্কার আইন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই সংস্কার আইনের উপকার ভোগ করবে কৃষকরাই। এটা কৃষি ক্ষেত্রে বিনিয়োগ আকর্ষণ করবে এবং তাতে কৃষিই লাভবান হবে। খবর আল জাজিরার।

তবে সরকার যা-ই বলুক না কেন, কৃষকরা তাতে আশ্বস্ত হতে পারছেন না। তাদের আশঙ্কা, সরকার ফসল ক্রয় না করলে তারা উৎপাদিত পণ্য বিক্রির ক্ষেত্রে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর খামখেয়ালির শিকার হবেন। তাদের সুবিধামতো নির্ধারিত মূল্যেই কৃষকদের ফসল বিক্রি করতে বাধ্য করার চেষ্টা করা হবে। মোট কথা তাদের করুণার ওপরই নির্ভর করতে হবে গরিব উৎপাদকদের।

কমপক্ষে ত্রিশটি কৃষক সংগঠন সরকার প্রণীত নতুন কৃষি আইনটির বিরুদ্ধে তাদের প্রতিবাদ অব্যাহত রেখেছে। ইউনিয়নগুলোর ধারণা, নতুন আইনে ক্রেতারা কৃষকদের সঙ্গে কোনোরূপ আলোচনা ছাড়াই ফসল কিনতে আসবে এবং কৃষকরা তাদের খেয়াল খুশি মতো ফসল বেচতে বাধ্য হবে। এর আগে সরকার ও কৃষকদের মধ্যে সঙ্কট সমাধানে আলোচনা হয়েছে। তবে তাতে কোনো পক্ষই একমত হতে পারেনি। সরকার নতুন আইনের পক্ষে কথা বলেছে আর আন্দোলনরত কৃষকরা নতুন আইনটি পুরোপুরিই বাতিলের দাবি জানিয়েছে।

সরকারপ্রধান মোদির সর্বশেষ নিশ্চয়তা দেয়ার পরেও কৃষকরা তা মানতে রাজি হননি। তারা দিল্লিতে ঢুকে সাংবাদিকদের কাছে তাদের বক্তব্য তুলে ধরতে চান। বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা কৃষক সংগঠনগুলো বলেছে, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সরকার যদি আমাদের ঘরে ফিরে যাওয়া চায়, তাহলে অবশ্যই আমাদের দাবি মানতে হবে।