অবশেষে বাইডেনকে অভিনন্দন জানালেন পুতিন

6

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::
যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রায় দেড় মাস পর বিজয়ী জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানালেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। দুই দেশের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে মতপার্থক্য থাকলেও বাইডেনের শাসনামলে সেসব সমাধানে আশাপ্রকাশ করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট।

গত ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের কয়েকদিনের মধ্যেই বিশ্বের বেশিরভাগ নেতা শুভেচ্ছা জানান জো বাইডেনকে। তবে এর জন্য ছয় সপ্তাহ অপেক্ষা করেছে রাশিয়া। গত সোমবার ইলেকটোরাল কলেজ ভোটে ডেমোক্র্যাট নেতাকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ী ঘোষণার পরেরদিন শুভেচ্ছাবার্তা পাঠিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট।

বিবৃতিতে ক্রেমলিন বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের প্রতিটি ক্ষেত্রে সাফল্য প্রত্যাশা করেন ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি আত্মবিশ্বাসী যে, বৈশ্বিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার জন্য বিশেষ দায়িত্ব বহনকারী দুই দেশ রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে মতপার্থক্য থাকলেও তারা বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সত্যিই অবদান রাখতে পারবে।

বিবৃতিতে পুতিন বলেছেন, সমতা এবং পারস্পরিক সম্মানসূচক নীতির ওপর ভিত্তি করে রুশ-মার্কিন সহযোগিতা উভয় দেশের পাশাপাশি গোটা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়েরই স্বার্থ পূরণ করবে।

তিনি বলেছেন, আমার দিক থেকে সহযোগিতা ও যোগাযোগের জন্য আমি প্রস্তুত।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বাইডেন প্রশাসনকে সহযোগিতার মাধ্যমে সুসম্পর্ক গড়ে তোলার কথা বললেও এর বাস্তবায়ন নিয়ে সন্দেহ রয়েছে বিশ্লেষকদের।

২০১৬ সালের নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প বিজয়ী হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই শুভেচ্ছা জানিয়েছিল ক্রেমলিন। তবে বাইডেনকে অভিনন্দন জানাতে তারা অপেক্ষা করেছে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পর্যন্ত। অর্থাৎ, বাইডেন প্রশাসনের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক কেমন হতে পারে, তার আভাস পাওয়া যাচ্ছে এখনই।

ট্রাম্প তার গোটা শাসনামলে পুতিনের ভূয়সী প্রশংসা করে গেছেন। ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগ তিনি অস্বীকার করে গেছেন বরাবরই।

তবে বাইডেন প্রশাসন রুশ সরকারের প্রতি তেমন নমনীয় না হওয়ারই সম্ভাবনা বেশি। গত অক্টোবরে এক সাক্ষাৎকারে রাশিয়াকে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি বলে উল্লেখ করেছিলেন ডেমোক্র্যাট নেতা জো বাইডেন। জবাবে, তার ওই বক্তব্য বিদ্বেষ আরও বাড়িয়ে তুলবে বলে মন্তব্য করেছিল ক্রেমলিন।

সবুজ সিলেট/এস মায়াজ আহমদ তালহাদ