সাবেক চেয়ারম্যানের বাসায় ডাকাতি, কুচাই থেকে বাবুল ডাকাত গ্রেপ্তার

83

স্টাফ রিপোর্টার

সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থেকে বাবুল বিশ্বাস (৩৫) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ। বাবুল কুখ্যাত ডাকাত এবং তেতলী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ময়নুল ইসলামের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় সম্পৃক্ত বলে জানিয়েছে পুলিশ। এই ডাকাতির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে শনিবার আদালতে বাবুল জবানবন্দি দিয়েছেন বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

সিলেট মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম শাখা জানায়, গত ১৩ ডিসেম্বর তেতলী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ময়নুল ইসলামের বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) এক অভিযান পরিচালনা করে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রাজীব কুমার রায়ের নেতৃত্বে পুলিশ মোগলাবাজার থানাধীন কুচাই এলাকা থেকে বাবুল বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় ।

গ্রেপ্তারকৃত বাবুল বিশ্বাস (৩৫) জকিগঞ্জের মৃত ক্ষিতিশ বিশ্বাসের ছেলে। তিনি একাধিক ডাকাতি মামলার আসামী। তার বিরুদ্ধে বর্তমানে ৪টি ডাকাতি মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি আখতার হোসেন জানান, বাবুলকে জকিগঞ্জ থানা পুলিশ ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দে গ্রেপ্তার করলে তিনি জকিগঞ্জ থানা ভবনের উপর থেকে লাফ দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময়ে তার ডান হাত ও ডান পা ভেঙ্গে যাবার কারণে সে পালাতে পারেনি। সর্বশেষ গত ১৩ ডিসেম্বর তেতলী ইউনিয়নের বলদী গ্রামস্থ সাবেক চেয়ারম্যান ময়নুল ইসলাম এর বাড়ীতে ডাকাতির জন্য হানা দেয়। বাড়ীর লোকজনের সাহসিকতায় স্থানীয় জনতা প্রতিরোধ গড়ে তুললে ডাকাত দল। এ সময় তারা একটি রুপার চেইন, এক জোড়া স্বর্ণের রিং ও ২টি মোবাইল সেট লুন্ঠন করে এবং মোঃ ইছহাক নামে একজনকে আহত করে। বাবুল বিশ্বাস লাফ দিয়ে পালানোর কালে তার বাম পায়ে আঘাত পায় বলে জানায়। ইতোমধ্যে তার সহযোগী ডাকাত শিপন হাজারী গ্রেপ্তার হয়েছে। অন্যান্য ডাকাতদেরকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে। গ্রেপ্তারকৃত কুখ্যাত ডাকাত বাবুল বিশ্বাস তেতলী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ময়নুল ইসলামের বাড়ীর ডাকাতির ঘটনা স্বীকার করেছে। তাকে শনিবার আদালতে সোপর্দ করা হলে তিনি মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শারমীন সুলতানা নীলার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

সবুজ সিলেট/২০ ডিসেম্বর/ হাসান

  •