প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে সমুদ্র পাড়ি যুবকের!

8

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::
প্রেমিকার সঙ্গে এক নজর দেখা করার জন্য মানুষ কত অদ্ভূত কাণ্ড করে বসেন। তাই বলে প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সমুদ্র পাড়ি দেওয়ার ঘটনা; সত্যিই বিরল! এমনই এক কাণ্ড করে বসলেন এক যুবক।

বছর শেষ হয়ে যাচ্ছে। তবু দীর্ঘদিন আলাদাই রয়েছেন দুজন। এই বিরহের কারণ আর কেউ নয়, স্বয়ং করোনাভাইরাস। তবে আর এভাবে চলছিল না। তাই বাধ্য হয়ে গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে দেখা করতে তাই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সমুদ্র পাড়ি দিয়েছিলেন আইরিশ যুবক।

গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে দেখা করতে না পেরে ডিপ্রেশনে ভুগছিলেন ওই যুবক। কয়েকবার তিনি চেষ্টাও করেছিলেন অনুমতি পাওয়ার, কিন্তু তা খারিজ হয়ে যায়। আর সে কারণেই এমন ঝুঁকির কাজ করে বসেন যুবক।

তবে এত ঝুঁকি নিয়েও কোনো কাজ হলো না তার। স্কটল্যান্ড থেকে জেট স্কি করে আইরিশ সি পেরোতেই পুলিশের বাধার মুখে পড়তে হয়েছে তাকে। শুধু যে গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে থাকার সুযোগ হারালেন তা-ই নয়, কভিড-১৯ চলাকালীন যে নির্দেশিকা জারি করা আছে, তা লঙ্ঘনের অপরাধে হাজতবাসও মিলল তার।

জানা গেছে, ডেল ম্যাকলুগলান নামের ২৮ বছরের আইরিশ যুবক আগে কখনও পানির ওপর দিয়ে স্কুটার চালাননি। তা সত্ত্বেও প্রায় সাড়ে চার ঘন্টা জেট স্কি করে আইল থেকে হুইথরন পাড়ি দিয়েছিলেন। উদ্দেশ্য শুধু গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে দেখা করা। যদিও ডেল ভেবেছিলেন, এই পথ যেতে সময় লাগবে মাত্র চল্লিশ মিনিট।

এখানেই শেষ নয়, সমুদ্রের পথ পেরিয়ে ২৫ কিলোমিটার পথ হেঁটে ডেল পৌঁছলেন তার সঙ্গীর বাড়িতে। পুলিশকে নিজের বাড়ি বলে সেই বাড়ির ঠিকানাই দিয়েছিলেন। তবে পরদিনই তিনি যে এই দ্বীপের বাসিন্দা নন, তা বুঝে সেখান থেকেই তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সোমবার তার শাস্তির শুনানি হয়েছে, চার সপ্তাহের হাজতবাস।

কিছু ব্যতিক্রম ঘটনা ছাড়া গত মার্চ থেকে এই দ্বীপ বাইরের লোকদের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে। কভিড নিয়ম অনুযায়ী, বাইরে থেকে কেউ এলে তাকে অনুমতি নিয়ে আসতে হবে। নিয়ম লঙ্ঘন করলে হতে পারে তিন মাস জেল অথবা ১০ হাজার পাউন্ড জরিমানা।

সবুজ সিলেট/ এস মায়াজ আহমদ তালহা