সিলেট চেম্বার নেতৃবৃন্দের সাথে বিবিসিসিআই এর নেতৃবৃন্দের ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত

6

সবুজ সিলেট ডেস্ক ::

সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র নেতৃবৃন্দের সাথে বৃটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (বিবিসিসিআই) নেতৃবৃন্দের এক ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার বিকেলে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত সভাটি সঞ্চালনা করেন বিবিসিসিআই এর প্রেসিডেন্ট বশির আহমদ।

সভায় সিলেট চেম্বারের সভাপতি আবু তাহের মোঃ শোয়েব বলেন, প্রবাসীরা বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদ। প্রবাসীদের প্রেরিত রেমিট্যান্সের মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে। প্রবাসীদের সম্পদ ও বিনিয়োগের নিরাপত্তা দিতে বাংলাদেশ পুলিশ নতুন একটি উইং চালু করেছে।

তিনি বলেন, বেশীরভাগ ঘনিষ্ট লোকজনরাই প্রবাসীদের সাথে প্রতারণা করে থাকেন, তাই এ ব্যাপারে প্রবাসীদেরকে সজাগ থাকতে হবে। তিনি সিলেটের কৃষি খাতে বিনিয়োগের জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, সিলেটে চাহিদা অনুযায়ী কৃষি পণ্য উৎপাদিত হয় না, দেশের অন্যান্য স্থান থেকে সিলেটে শাক-সবজি, ফলমূল এসে থাকে। কৃষি খাতে বিনিয়োগ করে প্রবাসীরা লাভবান হতে পারেন। চেম্বার সভাপতি আরো বলেন, প্রতি বছর সিলেটের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনেক গ্র্যাজুয়েট বের হচ্ছে। কিন্তু পর্যাপ্ত চাকুরীর সুযোগ না থাকায় তাদেরকে কাজে লাগানো যাচ্ছে না। প্রবাসীরা দেশে শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনের মাধ্যমে এসব গ্র্যাজুয়েটদের কাজে লাগাতে পারেন।

তিনি উল্লেখ করেন, প্রবাসীদের সুবিধার্থে সিলেট চেম্বারের দাবীর প্রেক্ষিতে সিলেট-লন্ডন-সিলেট রুটে বিমানের সরাসরি ফ্লাইট পুনরায় চালু হয়েছে, যা বিনিয়োগ ও ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে। তিনি বলেন, সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে নির্মিত বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক ও সিলেট ইকোনমিক জোন-এ বিনিয়োগের জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহবান জানান।

সভায় বিবিসিসিআই এর প্রেসিডেন্ট বশির আহমদ বলেন, বাংলাদেশ-বৃটেনের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারে সিলেট চেম্বার ও বৃটিশ বাংলাদে চেম্বার দীর্ঘদিন যাবৎ একত্রে কাজ করে যাচ্ছে। নতুন প্রজন্মের প্রবাসীদের দেশের প্রতি উদ্বুদ্ধ করতে আমরা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি বলেন, আমাদেরকে অবশ্যই দেশে বিনিয়োগে এগিয়ে আসতে হবে। যদি চাইনিজরা বাংলাদেশে গিয়ে বিনিয়োগ করতে পারে, তবে আমরা কেন পারবো না।

তিনি জানান, যুক্তরাজ্যে বসবাসরত প্রবাসীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। এক্ষেত্রে তাদেরকে পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা ও নিরাপত্তা প্রদান করতে হবে। তিনি বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে প্রাতিষ্ঠানিক সেবার ক্ষেত্রে ওয়ানস্টপ সার্ভিস চালু ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বিরাজমান প্রতিবন্ধকতা সমূহ দূর করার দাবী জানান। তিনি সিলেট চেম্বারের বর্তমান কমিটির বিভিন্ন কার্যক্রমের ভূঁয়সী প্রশংসা করে বলেন, সিলেটের উন্নয়নে সিলেট চেম্বার ও বৃটিশ বাংলাদেশ চেম্বারকে একযোগে কাজ করে যেতে হবে। সভায় বক্তাগণ দেশে বিনিয়েগের ক্ষেত্রে প্রবাসীদের সার্বিক নিরাপত্তা বিধানের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন এবং পর্যটন খাতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আইন-কানুন শিথিল রাখার পরামর্শ দেন।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রফেসর সানোয়ার চৌধুরী, ডাইরেক্টর জেনারেল সাইদুর রহমান রানু, ডাইরেক্টর এ কে আজাদ, আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী, মাহতাব মিয়া, শাহগির বখত ফারুক, জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, মনির আহমদ, ফাইজুর রহমান চৌধুরী, সিলেট চেম্বারের পরিচালক আলিমুল এহছান চৌধুরী ও প্রবাসী বিনিয়োগকারীবৃন্দ।