সিলেটে নিষিদ্ধ যানবাহন বিভিন্ন কোম্পানীতে ব্যবহার

43


সৈয়দ জেলওয়ার হোসেন স্বপন
সিলেটে ফিটনেসবিহীন ও নিষিদ্ধ, জরাজীর্ণ যানবাহন চলছে অবাধে। সমগ্র জেলা ও উপজেলার বৈধ সড়কে অবৈধ ভাবে চলছে এসব যানবাহন। বিশেষ করে বিভিন্ন বিস্কুট কোম্পানী, ঔষধ কোম্পানীতে নিষিদ্ধ ও ফিটনেস বিহীন জরাজীর্ণ যানবাহন ব্যবহার করা হচ্ছে। রহস্যজনক কারণে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা রয়েছেন নির্বিকার। এ নিয়ে জনমনেও নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় সিলেটের সকল উপজেলায় বিভিন্ন বিস্কুট কোম্পানী, ঔষধ কোম্পানী, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য কোম্পানী গুলোতে নিষিদ্ধ করা টুস্টোকের টেম্পু, ফিটনেস বিহীন লাইটেস, টেক্সীকার, প্রাইভেটকারসহ ইত্যাদি যানবাহন সড়ক ও মহাসড়কে বিস্কুট, ব্রেড ও ঔষধসহ বিভিন্ন পন্য বহন করে বাজারজাত করা হচ্ছে। বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানীর কর্তৃপক্ষ এসব নিষিদ্ধ ও ফিটনেস বিহীন জরাজীর্ণ যানবাহনের বডি পরিবর্তন করে ও টেক্সীকার, প্রাইভেটকার এবং লাইটেস গাড়ীর বডি পরিবর্তন করে মিনিট্রাক তৈরি করে ও কালারের মাধ্যমে ঝকঝক করে সড়কে ব্যবহার করছেন। অপর দিকে বিভিন্ন কোম্পানীতে মিনিট্রাক ক্রয় করে অনুমোদন ছাড়াই বডি পরিবর্তন করে নির্ধারীত ধারণ ক্ষমতার চেয়ে দ্বিগুন ধারণ ক্ষমতার বডি নির্মাণ করে সড়কে অবৈধ ভাবে চালানো হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর, যোগাযোগ মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষ যানজট নিরসন ও সড়কে দুর্ঘটনা এড়াতে নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। পাশাপাশি গণপরিবহনের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে অবৈধ ও ক্রুটিপূর্ণ যানবাহনের বিরুদ্ধে নিয়মিত মোবাইল কোট পরিচালনাও করছেন। এর পরও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখকে ফাঁকি দিয়ে কিভাবে এসব নিষিদ্ধ ও জরাজীর্ণ ফিটনেস বিহীন যানবাহন সড়কে চলাচল করছে এ নিয়ে সচেতন মহলের মধ্যে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে।

সমগ্র উপজেলা ও জেলা শহরে বিভিন্ন বিস্কুট কোম্পানীসহ বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানীতে নিষিদ্ধ টু স্টোকের টেম্পুসহ জরাজীর্ণ ফিটনেসবিহীন যানবাহন সড়কে দাপিয়ে চলাচল করছে। এতে করে সড়কে বাড়ছে দুর্ঘটনা আর যুক্ত হচ্ছে সড়কে মৃত্যুর মিছিল। পাশাপাশি যানজট বৃদ্ধিও পাচ্ছে।

সড়কে মৃত্যুর মিছিল বন্ধ করতে ও সড়কের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাসহ নিরাপদে সাধারণ জনগণ যাতায়াতের স্বার্থে অবিলম্বে নিষিদ্ধ টু-স্টোকের টেম্পুসহ জরাজীর্ণ ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচল বন্ধ করণসহ প্রয়োজনীয় প্রদক্ষেপ গ্রহণ করতে অভিজ্ঞ মহল জোর দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্ধ্বতন র্কর্মকর্তার প্রতি।

এ ব্যাপারে মহানগর পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) ফয়সাল মাহমুদের সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন,এসব জরাজীর্ণ যানবাহন আগের মত দেখা যায় না। তবে সড়কে পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সবুজ সিলেট/ডিসেম্বর ২৪/হাসান