সুনামগঞ্জের ট্রাক ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়নের বিক্ষোভ

4

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ::
সিলেট বিভাগের বালিপাথর মহাল ও কোয়ারি খুলে দেয়ার দাবি মেনে না হলে দেশবাপী পরিবহণ ধর্মঘটের ডাক দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন পরিবহণ শ্রমিকরা এবং লাগাতার ধর্মঘটের জন্য প্রস্তুতি নিতে সাধারণ শ্রমিকদের প্রতি আহ্বান জানান।
গত মঙ্গলবার থেকে সুনামগঞ্জ সকল পন্যবাহী যানবাহন চলাচলবন্ধ করে দিয়েছে সুনামগঞ্জ জেলা ট্রাক ট্যাংক লরি, কাভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে শহরের ওয়েজখালী এলাকায় ট্রাক টার্মিনালে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন শ্রমিকরা।

সুনামগঞ্জ থেকে সবজিবাহী পিকআপসহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য সামগ্রী বহনকারী যানবাহন আটকে দেয়া হয়েছে। শ্রমিক ও মালিকরা বলেন,সিলেটের বালি পাথর মহাল ও কোয়ারি গুলো বন্ধ থাকায় হাজার হাজার ট্রাক মালিক শ্রমিকরা ১বছর যাবত মানবেতর জীবন যাপন করছেন। ট্রাক,পিকআপ এর ব্যাংক কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে না পারায় শ্রমিক মালিকদের বিরুদ্ধে চেক ডিজঅনার মামলা হচ্ছে। গাড়ির কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে না পেরে হাজার হাজার মালিক শ্রমিক পথে বসেছেন। বেলচা শ্রমিক, লোড আনলোড লেবার, গাড়ির হেল্পার, বারকি শ্রমিক, নৌযান শ্রমিক সবাইকে বেকার করে দিয়েছে সরকার। শ্রমিকের ঘরে রান্না হয় না চুলায় আগুন জ্বলে না। এভাবে কোন দেশ চলতে পারেনা।

অবিলম্বে সিলেট,সুনামগঞ্জ,হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারসহ সিলেট বিভাগের সকল পাথর কোয়ারি ও বালিপাথর মহাল থেকে ম্যানুয়াল পদ্বতিতে বালি পাথর উত্তোলণের ব্যবস্থা করে দিতে হবে। তা নাহলে আগামীতে পরিবহণ শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে সারাদেশের পণ্য পরিবহন চলাচল অনিদিষ্টকালেল জন্য বন্ধ করে দেবেন। মঙ্গলবার সকাল থেকে আগামীকাল শুক্রবার ভোর পর্যস্ত সব ধরনের পণ্য পরিবহন বন্ধ থাকবে। বিক্ষোভ মিছিল শেষে বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা ট্রাক ট্যাংক লরি, কাভার্ড-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুস সামাদ,সাধারণ সম্পাদক নূর উদ্দিন,সদর উপজেলা শাখার সভাপতি মছব্বির মিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোপাল মালাকার, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু খালেদ মাসুম, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা শাখার সভাপতি মোহাম্মদ হোসেন, শ্রমিকনেতা রবিউল ইসলাম, শাহরুখ মিয়া প্রমুখ। সুনামগঞ্জ জেলার ফাজিলপুর, ধোপাজান,চলতি নদী, যাদুকাটা নদীর বালিপাথর মহাল বন্ধ থাকায় ট্রাকমালিক ,পরিবহণ শ্রমিক সহ ৫০ হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছেন।

সবুজ সিলেট / এস মায়াজ আহমদ তালহা