বিজয়ের মাসে বড়লেখা হাসপাতালে উড়ে না জাতীয় পতাকা

8

আশফাক জুনেদ, বড়লেখা

বিজয়ের মাসে মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ৫০ শয্যা বিশিষ্ট সরকারি হাসপাতালে উড়ছে না স্বাধীনতার সার্বভৌমত্বের নিদর্শন জাতীয় পতাকা। দেশের সব সরকারি ভবন, অফিস, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ভবনে সব কর্মদিবসে পতাকা উত্তোলনের বিধান থাকলেও উপজেলার গুরুত্বপুর্ন এই প্রতিষ্টানে জাতীয় পতাকা না উড়ায় এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুক্তিযোদ্ধাসহ সুশীল সমাজ।

জানা গেছে, জাতীয় পতাকা বিধিমালা-১৯৭২ (সংশোধিত ২০১০)-এ জাতীয় পতাকা ব্যবহারের বিভিন্ন বিধি-বিধান বর্ণিত হয়েছে। জাতীয় পতাকা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের নিদর্শন। তাই সব সরকারি ভবন, অফিস, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ভবনে সব কর্মদিবসে পতাকা উত্তোলনের বিধান রয়েছে। কিন্তু দেখা গেছে, বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় না। পতাকা স্ট্যান্ড থাকলেও সেখানে ওড়ে না জাতীয় পতাকা। সরেজমিন উপজেলা হাসপাতালে গিয়ে এর সত্যতা পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) বড়লেখা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক ইকবাল হোসেন স্বপন বলেন, মুজিববর্ষে বড়লেখা হাসপাতালে স্বাধীনতার প্রতিক জাতীয় পতাকা উত্তোলন না করাটা দৃষ্টিকটু। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী চলছে। এমন সময়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হচ্ছে না, এটা অবশ্যই ঠিক নয়। এ ব্যপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দায়িত্বশীল ভুমিকা আশা করছি।

বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.রত্নদ্বীপ বিশ্বাস বলেন, বিশেষ সব দিবসে হাসপাতালে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। তাছাড়া হাসপাতালের ক্ষেত্রে বিশেষ দিবস ছাড়া অন্যান্য সব দিনে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের বাধ্যবাধকতা নেই।

মৌলভীবাজার জেলা জর্জ কোর্টের এপিপি, অ্যাডভোকেট জিল্লুর রহমান বলেন, জাতীয় পতাকা আইনে স্পষ্ট বলা আছে দেশের সকল সরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রতি কর্ম দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোল করতে হবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেের ক্ষেত্রে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের বাধ্যবাধকতা আছে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্ম কি সরকারি হাসপাতাল না?

সবুজ সিলেট/ হাসান