ইয়েমেনের নতুন সরকার বিমানবন্দরে পা রাখতেই হামলা, বহু হতাহত

3

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বিদেশে শপথ নিয়ে দেশে ফেরা মাত্রই হামলার শিকার হয়েছে সৌদি আরবের সমর্থনপুষ্ট ইয়েমেনের নতুন সরকার। বুধবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী মইন আব্দুলমালিকসহ নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা আদেন বিমানবন্দরে নামতেই ব্যাপক গোলাগুলি ও একাধিক শক্তিশালী বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, বিস্ফোরণগুলো বেশ শক্তিশালী ছিল। এতে ঠিক কতজন হতাহত হয়েছেন, তা এখনও নিশ্চিত নয়।

তবে নিরাপত্তা বাহিনীর বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, হামলায় অন্তত পাঁচজন প্রাণ হারিয়েছেন, আহত হয়েছেন কয়েক ডজন।

ঘটনাস্থলে থাকা এএফপি’র প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মন্ত্রিসভার সদস্যরা বিমান থেকে নামার সময় তিনি অন্তত দু’টি বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন।

হামলার পরপরই নতুন মন্ত্রীদের প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তারা অক্ষত রয়েছেন।

দক্ষিণাঞ্চলীয় বিদ্রোহীদের সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে গত ১৮ ডিসেম্বর গঠিত হয়েছে ইয়েমেনের নতুন সরকার। সম্প্রতি সৌদি আরবে গিয়ে শপথ নিয়েছেন এ সরকারের ২৪ মন্ত্রী। সেখানে গত শনিবার তাদের শপথ পড়িয়েছেন ইয়েমেনি প্রেসিডেন্ট আবেদরাব্বো মনসুর হাদি।

২০১৪ সালে ইয়েমেনি রাজধানী সানা ইরান সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীরা নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর থেকেই রিয়াদে রয়েছেন প্রেসিডেন্ট হাদি। ইয়েমেনের উত্তরাঞ্চল নিয়ন্ত্রণকারী বিদ্রোহীদের মোকাবিলা করতে সম্প্রতি দক্ষিণাঞ্চলীয় বিদ্রোহীদের সঙ্গে ক্ষমতা ভাগাভাগি করে নতুন সরকার গড়েছেন তিনি। তার পক্ষে লড়ছে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট।

গত পাঁচ বছর ধরে ইয়েমেনি বিদ্রোহীদের সঙ্গে সৌদি জোটের এ সহিংসতায় প্রাণ হারিয়েছেন হাজার হাজার বেসামরিক মানুষ, ঘরছাড়া হয়েছেন কয়েক লাখ। গত কয়েক দশকের মধ্যে ইয়েমেনেই বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহ মানবিক সংকট তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।