ওসমানীনগরে যুবকের ওপর হামলা : টাকা ছিনতাই’র ঘটনায় মামলা

208


ওসমানীনগর প্রতিনিধি:
সিলেটের ওসমানীনগরে পূর্ব শত্রুতার জেরে হামলা করে টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। হামলায় আহত যুবক দুলন মিয়ার বড় ভাই ওসমানীনগর উপজেলার সাইটদা গ্রামের আব্দুল মতিনের পুত্র সুজন মিয়া বাদি হয়ে ১৮ ফেব্রুয়ারি সিলেট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩য় আদালতে এই মামালাটি দায়ের করেন। মামলার এজাহারে ৪ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা আরো ২ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার কমরপুর গ্রামের কুতুব আলীর পুত্র আনহার মিয়া, মানিক মিয়া, মানিক মিয়ার পুত্র সোহেল মিয়া ও শাকিল মিয়া।
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে সাইটদা গ্রামের সুজন মিয়ার চাচা যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাহাব উদ্দিনের মালিকানাধীন দোকান কোটার ভাড়াটে একই উপজেলার কমরপুর গ্রামের কুতুব আলীর পুত্র আনহার মিয়া বিগত কয়েক মাস ধরে দোকান কোটার ভাড়া পরিশোধ করেন নি। ভাড়া পরিশোধের জন্য সুজন ভাড়াটে আনহারকে নোটিশ দেন। নোটিশের জের ধরে আনহার ক্ষিপ্ত হয়ে সুজনকে গালমন্দ করেন। ১৬ ফেব্রুয়ারি সুজনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে তার ভাই দোলন মিয়াকে দিয়ে এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা বাড়িতে পাঠান। টাকা নিয়ে রিকশা দিয়ে দুলন নাগেরকোনা এলাকায় পৌঁছলে সেখানে আগ থেকে ওৎ পেতে থাকা আনহার ও তার সহযোগিরা একটি সিএনজি নিয়ে দোলনের পথ আটকায়। দুলনকে রিকশা থেকে নামিয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তার ওপর হামলা করা হয়।হামলাকারীদের ধারালো দা-এর কোপে দুলনের ডান হাতের একটি আঙুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এসময় দুলনের সাথে থাকা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত সটকে পড়ে হামলাকারীরা। আহত দুলনকে সিলেট এমএ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে আসার পর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে সিলেট শহরের মাউন্ড এডোরা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এবিষয়ে বাদি পক্ষের আইনজীবি অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে এফআইআর করার জন্য ওসমানীনগর থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

  •