নিউজিল্যান্ডে ভূমিকম্প : যেমন আছেন টাইগাররা

5

সবুজ সিলেট ডেস্ক::
মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে তিনটি শক্তিশালী ভূমিকম্পের কবলে পড়েছে নিউজিল্যান্ড। দেশটির নর্থ আইল্যান্ডের জিসবোর্নে প্রথমে ৭.৩ তিন মাত্রার ভূমিকম্পের পর আবার ৮.১ মাত্রার কম্পন অনুভূত হয়েছে। মাঝে আরেকটি ভূমিকম্প হয় ৭.২ মাত্রার। যে কারণে জারি করা হয়েছে সুনামি সতর্কতা, নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে উপকূলীয় অঞ্চলের বাসিন্দাদের।

এমন খবরের পর স্বাভাবিকভাবেই চলে আসে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের চিন্তা। যারা তিনটি করে ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি খেলতে এখন নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে অবস্থান করছে। ফলে সবার মনেই এসেছে প্রশ্ন, জাতীয় ক্রিকেটাররা নিরাপদে আছে তো? তাদের খবর কী? ২০১৯ সালের মতো এবারও কি সফর স্থগিত হয়ে যাবে?

উত্তর মিলেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছ থেকে। টিম লিডার হিসেবে জাতীয় দলের সঙ্গে যাওয়া বিসিবি কর্মকর্তা জালাল ইউনুসের বয়ানে দেয়া হয়েছে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি। যেখানে জানানো হয়েছে, নিউজিল্যান্ডে শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানলেও, টাইগার ক্রিকেটার ও দলের সঙ্গে থাকা সবাই নিরাপদেই আছেন।

মূলত ভূমিকম্পের কেন্দ্র থেকে অনেক দূরে বাংলাদেশ দলের বর্তমান অবস্থান। টাইগাররা এখন রয়েছে ক্রাইস্টচার্চে। সেখান থেকে জিসবোর্নের দূরত্ব প্রায় ৯০০ কিলোমিটার। ফলে ভূমিকম্পের সময় টের পাননি ক্রিকেটাররা। বিশেষ করে নিউজিল্যান্ডে তখন মধ্যরাত হওয়ায় দলের প্রায় সবাই গভীর ঘুমে মগ্ন ছিলেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের আনুষ্ঠানিক বিবৃতি নিচে তুলে ধরা হলোঃ

‘আজ (শুক্রবার) স্থানীয় সময় রাত ২টা ২৭ মিনিটে নিউজিল্যান্ডের নর্থ আইল্যান্ডের পূর্বে ৭.৩ মাত্রা ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। এর সতর্কতাস্বরুপ নর্থ আইল্যান্ড, বিশেষ করে উপকূলীয় অঞ্চলে সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়।

ক্রাইস্টচার্চ সাউথ আইল্যান্ডে অবস্থিত এবং ভূমিকম্পের কেন্দ্র থেকে এর দূরত্ব অনেক। এর বাইরেও বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখেছে। তারা নিশ্চিত করেছে, নিউজিল্যান্ডের এই অংশে চিন্তার কোনো কারণ নেই।

আমাদের দলের সবাই ভালো আছে। দিনের সকল কার্যক্রম স্বাভাবিক রুটিনেই এগিয়েছে। সেই মোতাবেক খেলোয়াড়রা নিজেদের গ্রুপে ভাগ হয়ে লিংকন গ্রিন পার্কে অনুশীলন করেছে।’

উল্লেখ্য, চলতি সফরের আগে সবশেষ ২০১৮-১৯ সালে তিন ওয়ানডে, তিন টি-টোয়েন্টি ও তিন টেস্ট খেলতে নিউজিল্যান্ড গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। সেবার ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষ করে দুই টেস্ট খেলার পর তৃতীয় টেস্টের আগে অল্পের জন্য ক্রাইস্টচার্চ মসজিদের সন্ত্রাসী হামলা থেকে রক্ষা পায় ক্রিকেটাররা। তবে সেই সফরে তৃতীয় টেস্ট আর হয়নি। জরুরি ভিত্তিতে দেশে ফিরে এসেছিল বাংলাদেশ দল।

  •