কানাইঘাটে শাকিলের আত্মহত্যা নিয়ে ধুম্রজাল, আটক ৪

13


কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ
কানাইঘাটে ২৫ বছরের যুবক শাকিলের আত্মহত্যা নিয়ে এলাকায় ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির গোরকপুর গ্রামে পরকীয়া প্রেমিকার খালা রেজিয়া বেগমের বাড়িতে লুঙ্গী পেচিয়ে সে আত্মাহত্যা করে। খবর পেয়ে পরদিন সকাল ৮টার দিকে থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জাহিদুল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শাকিল আহমদের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। পরে লাশের সুরতহাল রির্পোট তৈরী করে ময়না তদন্তে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। নিহত শাকিলের বাড়ি পাশর্^বর্তী জকিগঞ্জ উপজেলার আটগ্রামের গুচ্ছ গ্রামে। সে ঐ গুচ্ছ গ্রামের মৃত অনিল বিশ^াসের ছেলে নওমুসলিম। জানা যায় একই গুচ্ছগ্রামে স্ত্রী সহ বসবাস করেন দুলাল আহমদ নামের আরেক ব্যাক্তি। সেই দুলালের স্ত্রী সুহানা বেগমের সাথে ছিল শাকিলের পরকিয়া প্রেমের সর্ম্পক। পরকিয়া প্রেমিকা সুহানা কানাইঘাট উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির সিঙ্গারীপার গ্রামের রমজান আলীর মেয়ে। গত ২ এপ্রিল শাকিল তার পরকিয়া প্রেমিকা সুহানা বেগমকে নিয়ে সিলেট শহরে পালিয়ে যায়। একপর্যায়ে সোমবার রাতে তাদের সন্ধান পান দুলাল আহমদ। সন্ধান পেয়েই কৌশলে দুলাল তাদের কাছে চলে যায়। এতে তাদের বন্ধন অটুট দেখে সুহানার স্বামী দুলাল অসহায় হয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে দুলাল তাদের বুঝিয়ে সুহানা বেগমের খালা রেজিয়া বেগমের বাড়ীতে তাদের দুজনকে নিয়ে আসে। রাতে শাকিল, দুলাল ও সুহানার ভাই ইমরান আহমদ একই ঘরের একটি কক্ষে রাত্রি যাপন করে। ভোরবেলায় তারা শাকিলের লাশ দেখতে পায় বলে এলাকায় প্রচার করে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ৪জনকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে থানার ওসি (তদন্ত) জাহিদুল হক জানিয়েছেন ময়না তদন্তের রির্পোটের পর নিশ্চিত হবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।

  •